1. [email protected] : admin001 :
  2. [email protected] : Khairul Islam Sohag : Khairul Islam Sohag
  3. [email protected] : Mizanur Rahman : Mizanur Rahman
  4. [email protected] : JM Amin Hossain : JM Amin Hossain
  5. [email protected] : Soyed Feroz : Soyed Feroz
  6. [email protected] : Masud Sarder : Masud Sarder
  7. [email protected] : Kalam Sarder : Kalam Sarder
  8. [email protected] : Md. Imam Hoshen Sujun : Md. Imam Hoshen Sujun
  9. [email protected] : Royel Imran Sikder : Royel Imran Sikder
  10. [email protected] : amsitbd :
অনুপ্রবেশকারীদে চাপে বিভক্তি কুয়াকাটা পৌর আ.লীগে: প্রভাব পড়বে আসন্ন পৌর নির্বাচনে | সময়ের খবর
রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৮:১১ অপরাহ্ন

অনুপ্রবেশকারীদে চাপে বিভক্তি কুয়াকাটা পৌর আ.লীগে: প্রভাব পড়বে আসন্ন পৌর নির্বাচনে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট: মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০

 

পটুয়াখালী জেলার পর্যটন নগরী কুয়াকাটা পৌর আওয়ামীলীগে অনুপ্রবেশকারীদের কারনে বিভক্তিসহ বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ছে। আওয়ামীলীগের পরীক্ষিত নেতাকর্মীরা হয়ে পড়েছে কোনঠাসা এসব অনুপ্রবেশকারীদের দাপটে । একাধিক মামলায় আসামী হয়েছেন অনেকে ত্যাগী নেতাকর্মী। আসন্ন কুয়াকাটা পৌর নির্বচনকে কেন্দ্র করে এ বিভক্তি আরো বেশি প্রকট হচ্ছে। উড়ে এসে জুড়ে বসা এসব হাইব্রীডদের নেতিবাচক কর্মকান্ডে বিব্রত মাঠ পর্যেিয়র সাধারনকর্মীরা। এসব হাইব্রীডদের দমনে এখনই সাংগঠনিক উদ্যোগ না নিলে পৌর নির্বাচনসহ স্থানীয় রাজনীতিতে এর বড় ধরনের প্রভাব পড়বে। এমন শংকা ও দাবী স্থানীয় নেতাকর্মীদের।

স্থানীয় সূত্র জানায়, পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটার লক্ষে ২০১০ সালের ১৫ ডিসেম্বর জেলার মহিপুর থানার লতাচাপলী ইউনিয়কে বিভক্ত কওে ঘোষনা করা হয় কুয়াকাটা পৌরসভা। ভিভিআইপি নেতা, মন্ত্রী, সরকারী কর্মকর্তাদের নিয়মিত আগমসহ পর্যটন বিবেচনায় এ পৌরসভাটি হয়ে ওঠে গুরুত্বপূর্ন। ফলে আওয়ামীলীগের দূর্গখ্যাত এ এলাকার রাজনীতিতে আসে ভিন্নরূপ। সুযোগ বুঝে অনুপ্রবেশ ঘটে বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীর।

প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের একাধিক দ্বায়িত্বশীল নেতা জবাবদিহিকে বলেন, এসব অনুপ্রকেবশকারীদের অনেকেই সরকারী খাস জমির ভ’য়া খতিয়ান তৈরি করে বিক্রির সাথে জড়িত। জমির দালাল ও দখলকারী এসব হাইব্রীডরা কালো টাকার মালিকদের টাকা সাদা করে নিজেরাও হয়েছেন কোটি কোটি টাকার মালিক। এসব বানিজ্যসহ নিজের অবৈধ কাজের সুরক্ষায় যে ক্ষমতায় তারা সে দলে যোগদান করে।
কুয়াকাটা পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শাহজাহান হাওলাদার, জাফর মুন্সী বলেন, বিএনপি থেকে জাতীয়পার্টি হয়ে এখন আওয়ামীলীগে যোগ দিলেও দলীয় সদস্য পদ না পাওয়া এসব হাইব্রীডরা নিজের আধিপত্য বিস্তারে মরিয়া হয়ে উঠেছে। পৌর নির্বাচনে নৌকার টিকিট পাওয়ার আশায় দলের মধ্যে বিভক্তি তৈরি করছে। বিরোধীতাকারী ত্যাগী নেতাকর্মীদের নামে একাধিক মামলা দিয়ে কোনঠাসা করে রেখেছে।

কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি মজিবুর রহমান জানান, এক সময় বঙ্গবন্ধু, আওয়ালীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামীলীগের কঠোর সমালোচনাকারীরা এসব অনুপ্রবেশকারীরা এখন তাদের নামে শ্লোগান দেয়। বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা, স্থানীয় সাংসদ, জেলা নেতৃবৃন্ধের সাথে তাদের ছবিসহ পোস্টার ব্যানার দেখে কস্ট হয়। ছাত্রনেতা সাদ্দাম হোসেন বলেন, হাইব্রীডদের বিরোধীতা করে বিরাগ ভাজন হয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি মজিবরসহ ওয়ার্ড আওমীলীগের সভাপতি ইউসুব হাওলাদর, দুলাল শিকদার, আবৃুল হোসেন ফরাজী, নিজাম বেপারী, আসাদুজ্জামান কবির, আমির হোসেন, আবুল হোসেন একাধিক মামলার আসামী হয়েছেন।

কুয়াকাটা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আ. বারেক মোল্লা দেশ রূপান্তরকে বলেন, অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে দল কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

পটুয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ভিপি আ. মান্নান জবাবদিহিকে বলেন, অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে খোজ খবর নেয়া হচ্ছে। তাদের বিষয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। দলীয় নির্দেশনা অমান্য করে কেউ যদি বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, স্থানীয় সাংসদসহ জেলা নেতৃবৃন্ধের ছবি দিয়ে পোস্টার ব্যানার করে থাকে তাদের বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত এখানে লিখুন

Please Share This Post in Your Social Media

এই ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ
স্বত্বাধিকারী: রুরাল ইনহ্যান্সমেন্ট অর্গানাইজেশন (রিও) এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার জনকল্যাণ মন্ত্রনালয়ের সমাজসেবা থেকে নিবন্ধনকৃত।
Developed BY: AMS IT BD
Translate »